Thursday, April 1, 2010

মুঠোফোন পদ্য - ২২

২৩.০৩.২০১০ | ১৬:০০
বৈশাখ আসতে এখনো অনেক বাকি,
রাস্তায় তবু গনগনে সূর্য।
উত্তপ্ত হাওয়ায় আমার বিক্ষিপ্ত মনপাখি,
শেখে ভালোবাসা আর ধৈর্য।
-------------

২৩.০৩.২০১০ | ১৬:১৭
মনপাখি বলছিল, জানো মহাবিশ্বের শেষ কোথাই?
আমি বলি, জানি, ভালোবেসে আমি যতদুর যাই..।
-------------

23.03.2010 | 16:40
Because I want to be miserable,
I dive in the abject death.
It's a love that is immeasurable,
A devotion of total faith.
-------------

২৫.০৩.২০১০ | ১৩:৫৫
ছয় হাজার কিলোমিটার দুর থেকে আমি বললাম
"শুভ সকাল"! এখানে অবশ্য দুপুর!
পুকুর পাড়ের পথ ধরে তোমাকে খুঁজে বেড়ালাম,
দুর থেকে শুনি তোমার পায়ে নুপুর।
-------------

২৯.০৩.২০১০ | ০১:৫৭
আজকাল ঘুমাতে ভালো লাগে!
বাস্তবে তো দেখা মেলে না,
তাই স্বপ্নে দেখার ইচ্ছা জাগে।
তোমার ছবিটার দিকে তাকাই,
আর স্বপ্ন দেখব বলে ঘুমাই...।
-------------

Monday, December 7, 2009

মুঠোফোন পদ্য - ২১

২২.০৯.২০০৯ । ০৫:৫১
বাংলাদেশে তোমাকে পাঠানো শেষ পদ‍্য:

তোমার যাওয়ার পথ চেয়ে জেগে থাকি
আর কথা হবে না গো, অল্প সময় বাকি,
তুমি ভালো থেকো আর ঠিকমত যেও
মন ভালো রেখো আর পেটপুরে খেও।
------------------------------


০৯.০৮.২০০৯ | ২১:১৭
হাতে হাতে কদম ফুলে,
জলকনারা ছন্দে দুলে.
ওরা কজন লেকের পাড়ে
কাজ পালিয়ে গল্প করে।
সেথায় দুজন গোপন সুরে
প্রেম আকাশে হারায় দুরে!

----------------------

০৯.০৮.২০০৯ । ১৩:৪০
তোমার চোখে কাজল ছিল,
আমার ছিল আজল ভরা জল।
নেটের লাইনে ভেজাল ছিল,
চোখ হোল আজ জলের কল।

----------------------

০৯.০৮.২০০৯ । ০০:০৭
নাকের ভাজে নিয়ে আসন
আমায় কোর কঠিন শাসন
তোমার স্বচ্ছ মনের ফাকে
তাকিয়ে দেখি দুনিয়াটা কে
আমার কাছে আসবে কবে?
তুমি কি আমার চশমা হবে?!

----------------------

২৯.০৭.২০০৯ | ২১:১৭
ছুয়েছিলাম তোমার পায়ে
আত্ম বাধার লাগাম টুটে
তোমার কোমল পা ছুয়ে যে
আবেশ ছড়ায় বিজলি ছুটে!
মনের গহীন অন্তরালে
জলের নাচন দুটো প্রাণে,
আলতো ছোয়ার ঈন্দ্রজালে
ভালোবাসায় কফীর টানে।
কফী ওয়ার্ল্ডের টেবিল তলে
যাই হোক সে ভুলোনা তুমি,
আমরা দুজন মন্ত্রবলে
সেদিন তপ্ত অধর চুমি।

Wednesday, July 29, 2009

মুঠোফোন পদ্য - ২০

হারিয়ে যাওয়া বেশকিছু পুরোন পদ্য খুঁজে পেয়েছি! এগুলো হচ্ছে সেই হারিয়ে যাওয়া পদ্যগুলো। তাই এগুলোর দিন তারিখের কোন ঠিক নাই।

২৯.০৭.২০০৯ | ০১:২১
বুঝতে চাও?
নেটে সার্চ দাও।
(তোমার বলা পদ্য)

-------------
১৪.০৫.২০০৯
লেকের পাড়ে হাওয়ায় উড়ে
বাংলালিংক এর কমলা রং,
তিন মিনিটে নামিয়ে আনি
তোমার জন্য Viva Song.
সুবহে সাদিকে জাগি আমি
তোমার সাথে যাবো বোলে,
কল্পনাতে ঘুমাই আমি
মাথা রেখে তোমার কোলে।
-------------
০৫.২০০৯
আজকে আমি একটু দুরে তোমার থেকে দুতিন হাত
বন্ধ কথা ফিসফিসিয়ে মুচকি হাসির ধারাপাত?
চোখ বন্ধ, মুখ বন্ধ, খুলুক তবে মন
কথা চলুক ‘ইয়াহু’তে নিরব কাব্য সারাক্ষন।
-------------

১৯.০৫.২০০৯ | ১৭:৩০
সামনে অপার শুন্যতা তুমি নাই,
মনিটরে খেলা চলে আলো ছায়ার।
একলা পেন্সিল হাতে তুমি দুরে,
আঁকছো বোসে সাদা রিচার্ড মায়ার।
-------------

নির্বাচনি পদ্য:

তোমাকে চাই এক্ষুনি
দেখব তোমার মুখখানি
-------------
এই মুহূর্তে দরকার
তোমার আমার সংসার
-------------
মার্কা হলো মুঠোফোন
এক হবে দুটো মোন
-------------


২ টা পুরোন পদ্য:

You solid ice cold,
I’m blowing coal
To make it gold.
Your heart you mould
To make me cold
But what can I do?
To you my heart is sold.
-------------

তুমি আমি মেঘের ভেলায়
জলকনা হয়ে উড়ি,
পাহাড় চুড়ায় বৃষ্টি হয়ে
মাখামাখি ঝরে পড়ি।
ফুলের কোলে রেনুর ভাঁজে
একাকার দেহ-মন..
লাজুক চোখে লুকিয়ে তাকায়
নীল রডোডেনড্রন।

Wednesday, July 15, 2009

মুঠোফোন পদ্য - ১৯

আমার নতুন মুঠোফোনের উপর অনেক ভরসা করে ফেলেছিলাম। ধরা খেয়েছি।
আমার অনেকগুলো পদ্য সে গায়েব করে ফেলেছে। এবছর জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত সব পদ্য হারিয়ে ফেলেছি। লেখাও অবশ্য কম হয়েছে এই সময়টাতে। তবুও প্রত্যেকটা ছোট পদ্যই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। কারন এরা পদ্য লেখার স্বার্থে লেখা না, এগুলো আমাদের জীবনের অদ্ভুত সুন্দর কিছু মুহূর্তের প্রতিচ্ছবি (আমার কাছে দুঃক্ষের স্মৃতিও সমান সুন্দর)। তাই এরা বিচ্ছিন্ন কবিতা না, ভালো হোক খারাপ হোক এরা আমাদের ডায়েরীর পাতার মত, ক্ষুদ্র স্মৃতির ধারক।

০৪.০৭.২০০৯ | ১৬:২০

নীল টিপ
আজ তোমার আগুন রঙে
একফোটা নীল ভুল কোরে পড়ে!
ভুল হোক আর ঠিক
তোমার আলোয় আলোকিত,
তোমার উত্তাপে প্রজ্জ্বলিত,
দিশেহারা হয় দশদিক।

------------------------

২৯.০৬.২০০৯ | ০০:৫০
আমার প্রিজমে যখন
তোমার আলোর প্রতিসরণ,
সাতটি নয় তখন একটি
অজানা রং এর বিচ্ছুরণ!
এটি তোমার রং।
আলোর অপর্থিব আলোড়ন
পঞ্চম মাত্রায় ছুটে চলে,
ভেঙে ফেলে চেনা পৃথিবীর ভীত।
আমি আসি কোয়ান্টাম কনা হয়ে
দুজনে গড়ি নতুন মহাবিশ্ব,
অচেনা নতুন পরিপ্রেক্ষিত।

------------------------

২৪.০৬.২০০৯ | ০২:৪২
এই গরমে শান্তি
তোমার কথার শীতল ছোঁয়ায়।
ঘুমের আগে জমাট ক্লান্তি, তবে
ভোর হলে যে দেখব তোমায়
সেই খুশিতে রাতটা কমাই!
------------------------


২০.০৬.২০০৯ | ০২:১২
কল্পনায় আমি ‘আমি’, আমি স্রষ্টা
আমি চালোক এ জগতের, আপনার!
কল্পনাই তুমিই আমি, একই স্বত্তা,
দেহমন মিলে মিশে একাকার।

------------------------


২০.০৬.২০০৯ | ০২:০৩
হয়ে জড়সড়, চোখ টলোমলো,
মুখ কাচুমাচু কোরে,
দুনিয়া ভুলে মন জানালা খুলে,
বললাম ‘ভালোবাসি’ জোরে জোরে।

------------------------


২০.০৬.২০০৯ | ০১:৫৭
সময় এগোল আজ এক ঘন্টা
আমি পিছালাম আরো,
দুরে পালালো তোমার মনটা
হয়তো হবে অন্যকারো।

Wednesday, July 1, 2009

TEDx Dhaka

You know we hosted “TEDxDhaka” the first TEDx event (X= independently organized TED event) in Bangladesh on last Thursday (25th June, 2009)!
As usual we had no fund :-p ! My alma mater The University of Asia Pacific, School of Architecture provided us their large Open Studio as the venue for free. My university also gave us projector, screen and drinking water for the guests! I'm so thankful to the head of the school Dr. Abu Sayeed Ahmed for kindly accompany us during the event for providing us with all those extras.
Last year just two months after I got the notification about my fellowship, I got another mail from an unknown guy in Dhaka. He was talking about a meeting of all the ‘TED fans’ in Bangladesh! I was very amazed to learn that someone else is there in my town who is eager enough to call a meeting through TED.com's emailing system! I replied him with the news of my fellowship. He was equally excited! He is Mr. Cal Jahan. He has watched every TED Talk ever published in TED.com (and now few unpublished talks as well from my TED 2009 DVD!). And from then we are connected and we are sharing our TEDenergy together.
So obviously Cal and me were the two mainly behind arranging TEDxDhaka. And of course many of my junior friends in the campus helped us arranging the stuffs. Special thanks goes to Rubel Raf (ArchSociety Moderator) for technical supports,  Siam Sajid for still photography, Sanjeed Mahmood for shooting the videos, Arif Khan and Pallab Chakrabarti for other logistics.

Around 70 people came. Majority of the participants were architects or architecture students, including my teacher Architect Tanya Karim and Dr. Abu Sayeed Ahmed, plus there were attendees from I.T. related professions, environmental engineers, students from archaeology, liberal arts and more.
The participations in small discussions after every talk were very stimulating. At the beginning I gave an intro about all the TED brands and activities. Then we showed a deliberately mixed set of TED Talks intended to draw the first impression of the attendees about a TEDx event, to give a glimpse of contemporary architecture and technology, and to draw some awareness about some educational, social and environmental issues.
We showed talks by Joshua Prince-Ramus on his unique strategy of programmatic rational architecture, Adam Gassler and his sustainable fridge, Sugata Mitra on how kids teach themselves, David Merrill demos Siftables… Cal and me moderated the short discussions and after each talk. After David Merrill there was a power cut! And we had no power backup. Power cuts are very usual in Dhaka. And it was for around half an hour.
Bonnie Bassler’s how bacteria communicate’ was the next talk. During the power cut Cal continued Bonnie Bassler’s story in the dark and everyone eagerly listened to the bacteria’s quorum sensing communication system! The electricity didn’t come back and then I started my presentation without slides about my TED experience and ArchSociety.
As many of the architect participants were either members of ArchSociety or works with Archsociety so they were excited listen to all the stories. And those who were still not a part of ArchSociety I’m sure they were motivated to be part of it to join in the movement of open-source knowledge for architecture and design.
After I finished there was a long discussion about the present, future and strategies of ArchSociety. And the electricity came back! We lost few of our guests during this power interruption. And those who left missed more interesting talks lol.
We continued show with Moshe Safdie’sbuilding uniqueness, Pattie Maes’s demo of the sixth sense device. I loved to see the amazed eyes of the attendees! Lastly it was a talk by Hans Rosling (although it was not a TED Talk, this talk was collected from Rosling’s Gapminder, we informed Lara Stein and Becca Pace about showing a non-TED-Talk video) on ‘Bangladesh Miracle’. There were a lot of applauses, (although lastly there were less attendees present after the power cut, however) those who were there they were absolutely amazed after watching all the talks and participating in the discussions.

We got a lot of ‘sorry’ and ‘sigh’ messages from those who couldn’t participate or couldn’t manage to stay till the end. And we got many requests to arrange TEDx events regularly.
Next time we will try to host it in a better venue (at least where we will get power backups! lol).

-----------------------

Mohammad Tauheed,
Founder, Chief Editor, ArchSociety,
Architect, TKNRK Associates,
Dhaka, Bangladesh

Posted via web from TED Fellows 2009

Saturday, May 23, 2009

Apply now for TED India Fellows Program




(Click to DOWNLOAD the TED Fellows video as mp4)
TED Conference is one of most amazing gatherings of world leaders, thinkers and doers. Those who are still wondering what is the TED Conference all about visit www.ted.com and watch some TED Talks right now! Hundreds of amazingly inspiring and mind opening talks are available to watch and download for free now.

You may be wondering how to attend the conference! The regular membership fee for TED is 6000 USD. Yes it is quite a big amount for many of us. And even if you are ready to pay the money its not a certainty that you are going to get the membership! Remember getting into TED Conference means meeting and being under the same roof with all those amazing people like Bill Gates, Bill Clinton, Al Gore, Daniel Libeskind, Frank Gehry, Moshe Safdi and so on... So it seems getting a TED Membership is almost like being one of the important doers and thinkers of the world.
Yes it is tough!

However don't be hopeless! Think of your actions, your works, your life and stories. Are you doing anything really meaningful? Have you done something which has the potentiality to change the world? Do you have any great accomplishment or invention in your field? Then jump in to apply for the TED Fellowship!
TED Fellowship covers all the expenses for participating a TED Conference! It includes conference membership, traveling, lodging, foods all.

The Fellowship application process is now open for TED India 2009 (till 15th June). Visit ted.com/fellows
In TED India 100 Fellows will be selected. Around 75 fellows will be selected from South Asia! So people near me have a good chance to be one of them! Apply and test yourself as a doer for good changes in the world and have the feather of honor on your hat.
--------
Mohammad Tauheed,
TED Fellow 2009
Founder, Chief Editor, ArchSociety.com
Architect, TKNRK Associates.

Thursday, December 25, 2008

ঝরা পাতার পদ্য

১.
প্রতিবাদি গ্রাফিতি শিল্পি দেয়াল ছেড়ে ‘পি.সি’তে,
বন্দি, অর্থললুপ রেশম পোকার বর্ধমান কোকুনে।
মেকি হাসির ক্ষয়ে যাওয়া দাঁত বন্দিত্ব দৃঢ় করে।
মরে যাওয়া চেতনা জ্বলে উঠে পিক্সেলের কারাগারে।

২.
ব্যঙ বেচারা ভালোই ছিলো কুয়োর তলাই ঘুমে
কেন তাকে দুনিয়া চেনালে মিথ্যা কথার ছলে!
অনেক উৎসাহে লাফ দিয়েছিল পার হবে প্রশান্ত
ঘুরেফিরে দেখে একই নোনাজল, ধোঁয়াটে সিমান্ত।
মরা কুয়োই ভালো ছিল তার সুখময় শীতনিদ্রা,
শিশির ভেজানো ঘাস ছিল আর বন্ধু কালো পিপড়া।

Monday, December 8, 2008

মুঠোফোন পদ্য - ১৮

০৫.১২.২০০৮ । ১৫:৫৩
পথের দুপাশে বিস্তির্ণ
হলুদ সরিষার ভুঁই।
হলুদ মেখে, নেচে নেচে
ছন্দ তুলিস তু্ই!

-----------

১৫.১১.২০০৮ । ২০:২৫
ঝিলের ধারে কলমি ফুলে
বসে সবুজ ফড়িং,
তোর জন্য ধরতে গিয়ে
লাফিয়ে উঠি তিড়িং!
তবুও বলিস আমি নাকি
এককে বারে বোরিং!

------------
২২.১০.২০০৮ । ০১:১৪
মনটা আজকে রাতের
আধখাওয়া চাঁদের মত বিমর্ষ।
আমি তাকিয়ে রই তোর পানে
জল গড়িয়ে যায়... শতবর্ষ।
সাগরের ঢেউ আছড়ে পড়ে
তোর বুকে তীব্র মহাকর্ষ...!

-------------

১৮.১০.২০০৮ । ০০:৪৩
তোমার পথর মনের রূদ্ধ দেয়াল থেকে
কয়েকটা নিষ্ঠুর ইট আমি চুরি করব!
দরজা দেব, জানালা বানাব, সেই ছিদ্রতে,
জ্বেলে দেব সাতটা রঙিন মোমবাতি।
তোমার গোলে যাওয়া মনে সাঁতার দেব
লিখে দিব ঠোটে উঞ্চ নিবিঢ় অনুভূতি।

--------------

০২.১০.২০০৮ । ০৫:০১
ত্রিশ দিন রোজার শেষে
খাবার গন্ধে পাচ্ছে খিধে!
নতুন জামা নতুন বেশে
অনেক ফুরতি করব ঈদে!

-------------

০২.১০.২০০৮ । ০২:২৯
ভাবছো তুমি বড় হয়েছ
এখন কি আর ঈদ আছে হাই!
আর ভেব না এমন করে
জেগে ওঠো আজকে ভোরে,
গান গাও আজ অনেক জোরে
পেট পুরে খাও লাচ্ছা সেমাই!
দেখো ঈদ এখনো মজার হয়‍!

শুধু আমি আছি অনেক দুরে,
তোমায় স্বপ্নে দেখব বলে
আজ সারাদিন ঘুমের কোলে!

-----------

৩০.০৯.২০০৮ । ২৩:১৯
যেখানেই থাকি যতদুরে,
এ শুধু ভৌগলিক দুরত্বে!
মনে বাজে একই গান
গুনগুন করে তোমার সুরে।
পদ্মার পাড়ে আমি দাড়িয়ে।
তুমি আছো, প্রতিনিয়ত,
রক্তের মাঝে জলকনা হয়ে।

------------

২৮.০৯.২০০৮ । ১১:০৮
শহরের নকল সুখি সমাজে
আমিও সুখি মানুষের মত ঘুরি।
একবুক কষ্ট গিলে ফেলে
আমি হাসিমুখে চিবাই ঝালমুড়ি।
গন্তব্যহীন এলমেল উড়ে বেড়াই
আমি নাটাইহীন কাটা ঘুড়ি।

Saturday, September 27, 2008

মুঠোফোন পদ্য - ১৭

২৬.০৯.২০০৮ । ১৩:৩৪
স্বচ্ছ জলকনায় রোদ খেলা করছে
চারপাশে ঝলমলে দুপুর।
প্রকৃতি আজ তোমার রূপে সেজেছে
জলকনার পায়ে তোমার নুপুর।

------------------------

২৫.০৯.২০০৮ । ০০:০০
পৃথিবীর প্রতিটি ধুলিকনা
সেদিন আবাক বিস্ময়ে চেয়েছিল
সেই মহাক্ষনের দিকে!
যখন তুমি এসেছিলে পৃথিবীতে
দশ দিক আলোকিত করে!
তোমার আলোর ঝলকানিতে
চাঁদ সূর্য লজ্জা পেয়ে মুখ লুকায়
সেই আলোকিত ভোরে!
তোমার জোছনা ঝরে..
সেই আলোতে আমি আলোকিত
হোলাম ৪ মাস পরে!
তোমার জন্মক্ষণকে শ্রদ্ধা জানালাম
মাথা নত করে।

------------------------

২৩.০৯.২০০৮ । ২১:৪৮
স্বপ্ন মেলে ডালপালা
শুধু তুই কাছে নাই তাই বেকুলতা,
কল্পনায় তোকে জড়িয়ে থাকি
যেমন পাতায় ডালে স্বর্ণলতা!

------------------------


২২.০৯.২০০৮ । ০১:০৫
তোর লাগি শুধু মন কাঁদে হাই
ছুটে গেলে দেখি তুই কাছে নাই!
তোরে ছাড়া আমি বাঁচব কোথাই?
৩ হাজার ফিট বড় দুর মনেহয়!
একবার ছুটে আয়, কাছে আয়।

------------------------


২২.০৯.২০০৮ । ০০:৩৪
৩ হাজার ফিট দুরে থেকেও
তোকে আমি ছুঁয়ে ফেলতে পারি!
মন আমি ঠিক ছুঁয়ে ফেলি
ভেঙ্গে দেয়াল, পাথর, ঘরবাড়ি।

------------------------


২১.০৯.২০০৮ । ০০:২৬
আমার মনের মেঘ
তোর মনে উড়ে বৃষ্টি ঝরায়,
তোর বৃষ্টির জল গড়িয়ে এসে
আমার মনকে শুদ্ধ করায়,
সূর্য তোকে দেখায় বোলে
বুক ফুলিয়ে করলো বড়াই,
বাতাস বলে ছুঁয়েছে তোকে
আমায় এসে টিটকারি দেয়!

------------------------

২১.০৯.২০০৮ । ০০:০৭
তোমার মনের শব্দ শুনতে
সদা জাগ্রত এই টেলিপ্যাথি,
একসাথে ফুল ফোটে রোজ
একসাথে ওড়ে প্রজাপতি।

------------------------

২১.০৯.২০০৮ । ২৩:৩২
আমরা যে কত হাঁটতে পারি
রাস্তার নাই ধারণা!
অবাক হয়ে গায়ে মাখে সে
আমাদের পদচারণা।
------------------------

২১.০৯.২০০৮ । ২৩:২৯
ভালোবাসি ভালোবাসি ।।
গুনগুন করে মৌমাছি মনে..
আমার বৌ কি সেই গান শুনে
রাখবে কি আমায় হৃদয় কোনে?

------------------------

২১.০৯.২০০৮ । ২৩:২০
তোমার নিটল সাদা হাতদুটো
মাত্র ৬ ইঞ্চি দুরে!
আমার হাতে বিদ্যুৎ খেলে
নিবিড় স্পর্শের সুরে!

------------------------

২০.০৯.২০০৮ । ১২:৫০
তোকে দেখিনা সেই কতদিন হয়!
একটু দেখব বলে কত অনুনয়!
ছুটে যেতে চাই তোর কাছে,
নয় অভিনয়।
একটু আদর দিই..?খুব লাগে ভয়!